শাহরাস্তিতে আওয়ামী লীগ নেতা কর্তৃক ইউপি সদস্য লাঞ্ছিত

মোঃ রফিকুল ইসলাম পাটোয়ারী ঃ শাহরাস্তিতে আওয়ামী লীগ নেতা কর্তৃক এক ইউপি সদস্য লাঞ্ছিত ও মারধরের ঘটনা ঘটেছে। এ বিষয়ে ওই ইউপি সদস্য বাদী হয়ে শাহরাস্তি থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেছে।

গত মঙ্গলবার দুপুর ১২টায় উপজেলার রায়শ্রী উত্তর ইউনিয়ন পরিষদ সম্মুখে এ ঘটনা ঘটে। প্রত্যক্ষদর্শী, ইউপি সদস্য ও এলাকাবাসী সূত্রে জানা যায়, ওই দিন রায়শ্রী উত্তর ইউনিয়ন পরিষদে মরণঘাতি কোভিড-১৯ সংক্রমন প্রতিরোধে ঘোষিত লকডাউনে দুস্থ্য, অসহায় ও প্রান্তিক লোকদের মাঝে বিনামূল্যের চাল বিতরণ কার্যক্রম চলছিলো। চাল বিতরণের শেষ পর্যায়ে ওই ইউনিয়নের ৫নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগ সভাপতি মোঃ রতন চৌধুরী (রতন ড্রাইভার) চাল বিতরণে ওজনে কারচুপির অভিযোগ আনেন।

এ সময় ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান ও সদস্যরা মিলে বিষয়টি নিয়ে আলোচনা করেন। এক পর্যায়ে আওয়ামী লীগ নেতা আজাদ হোসেন মুন্সী ঘটনাস্থল ত্যাগরত ইউপি সদস্য মোঃ মনির চৌধুরীকে মোটর সাইকেল হতে নামিয়ে কিল, ঘুষি ও লাথি মেরে লাঞ্ছিত করে। এ সময় অন্যান্য ইউপি সদস্যরা এগিয়ে এসে তাকে রক্ষা করে।

এ বিষয়ে ৯নং ওয়ার্ড সদস্য মোঃ মনির চৌধুরী বাদী হয়ে শাহরাস্তি থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করে। ইউপি সদস্য মোঃ মনির চৌধুরী জানান, সরকারের দেয়া চালের বস্তা উপজেলা খাদ্য গুদাম হতে এনে সরাসরি ইউনিয়ন পরিষদ সংলগ্ন ঈদগাহ মাঠে গাড়ি থেকে নামিয়ে প্রতি ৩০ কেজির বস্তা ৩ জনের মাঝে ট্যাগ অফিসারের সামনে বন্টন হয়েছে। প্রতি ওয়ার্ডের সদস্যরা প্রতি ৩ জনকে ১টি করে বস্তা ভাগ করে দিয়েছে।

এখানে চাল কম বেশি হলে বিষয়টি ট্যাগ অফিসার সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকে জানাবেন। আজাদ হোসেন মুন্সী ইউনিয়ন পরিষদের সাথে সম্পৃক্ত না হয়েও উদ্দেশ্য প্রণোদিত ভাবে এ ঘটনাকে ভিন্নখাতে নিতে আমার উপর হামলা করেছে। আমি আইনের আশ্রয় নিয়েছি।

অভিযুক্ত আওয়ামী লীগ নেতা আজাদ হোসেন মুন্সীর মুঠোফোনে বক্তব্য নেয়ার জন্য ফোন দিয়ে সংযোগ পাওয়া যায়নি।

এ বিষয়ে ওই ইউনিয়নের দায়িত্বে নিয়োজিত ট্যাগ অফিসার উপজেলা দারিদ্র বিমোচন কর্মকর্তা মোঃ শাহজাহান মিয়া জানান, দেশের বর্তমান পরিস্থিতিতে অসহায়, দুস্থ্য ও প্রান্তিক জনগোষ্ঠির মাঝে সরকার প্রদত্ত ত্রানের চাল বিতরণ কার্যক্রম শেষ হওয়ার পর স্থানীয় এক ওয়ার্ড আওয়ামী লীগ সভাপতি চাল ওজনে কম হওয়ার অভিযোগ করেন ইউনিয়ন চেয়ারম্যানের নিকট। চেয়ারম্যান তার সাথে আলাপের শেষে আওয়ামী লীগ নেতা আজাদ হোসেন মুন্সী পুনরায় ওই বিষয়টি নিয়ে চেয়ারম্যান ও তার পরিষদের সদস্যদের সাথে উত্তেজিত ভাবে কথাবার্তা শুরু করেন।

এক পর্যায়ে ৯নং ওয়ার্ড সদস্য মনির চৌধুরীর সাথে তার বাকবিতন্ডা হয়। পরে চেয়ারম্যান ও স্থানীয় লোকজন পরিস্থিতি শান্ত করে সৃষ্ঠ ঘটনাটি পরবর্তীতে বসে সমাধান করবেন বলে আশ্বস্ত করেন।

ইউপি চেয়ারম্যান সেলিম পাটোয়ারী লিটন জানান, ৫নং ওয়ার্ডের সদস্য মোঃ মিজানুর রহমানের অনুপস্থিতিতে তার প্রতিনিধি হিসেবে ওয়ার্ড আওয়ামী লীগ সভাপতি রতন চৌধুরী ৩০জন লোকের জন্য ১০ বস্তা চাল বুঝে নিয়ে নিজে বিতরণ করেছেন। তার ওয়ার্ডের বিতরণকৃত চালের ওজনে কম বেশির অভিযোগ এনে অনাকাঙ্খিত একটি ঘটনা ঘটেছে। আলোচনার মাধ্যমে বিষয়টি স্থানীয় ভাবে মীমাংসা করা হবে।

একই রকম খবর