শাহরাস্তিতে জোরপূর্বক স্থায়ী ইমারত নির্মাণের অভিযোগ!

শাহরাস্তি প্রতিনিধি : চাঁদপুরের শাহরাস্তিতে সম্পত্তিগত বিরোধের জের ধরে বসত ঘরের সামনে জোরপূর্বক স্থায়ী ইমারত নির্মাণ করার অভিযোগ উঠেছে।

অভিযোগ সূত্রে জানা যায় রায়শ্রী দক্ষিণ ইউনিয়নের ৩ নং ওয়ার্ডের কুরকামতা ভূঁইয়া বাড়িতে এ ঘটনাটি ঘটে। বাদী মঞ্জুরান বেগম জানান আমার স্বামী বাচ্চু মিয়ার পৈতৃক সম্পত্তিতে স্বামী সংসার ও ছেলে মেয়ে নিয়ে দীর্ঘদিন যাবৎ বসবাস করে আসছি। এ অবস্থায় আব্দুল হালিমের ছেলে মিলন হোসেন, হিরন মিয়া এবং আব্দুল কাদেরের ছেলে নুর মিয়াসহ সঙ্গবদ্ধ সন্ত্রাসী দল দেশীয় অস্ত্রশস্ত্র ও লাঠিসোটা নিয়ে আমার ছেলের বসত ঘরের সামনে জোরপূর্বক স্থায়ী ইমারত (বিল্ডিং) করছে। এতে আমাদের বসত ঘর থেকে বাইর হওয়ার রাস্তা সম্পূর্ণ বন্ধ করে দেন।

যাহা অমানবিক ও অসামাজিক কর্মকান্ড হয়ে পড়েছে। এই নিয়ে এলাকায় তাদের সাথে বহুবার সালিশ দরবার করেও আমি কোন প্রতিকার পায়নি, বরং আমার স্বামী ও ছেলে মেয়েকে প্রাণনাশের হুমকি ধমকি দিয়ে আসছে, বর্তমানে আমি নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছি।

৩১ মার্চ ২০২২ খ্রিস্টাব্দে আব্দুল কাদের ছেলে নুর মিয়া (৬৫), আব্দুল হালিমের ছেলে মিলন হোসেন (৩০), হিরন মিয়া (২৮),শাহ আলম (৩০) ও আলেয়া বেগম (৫৫) কে অভিযুক্ত করে শাহরাস্তি থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করি, অভিযোগের প্রেক্ষিতে শাহরাস্তি থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে মিলন ও কিরণকে স্থায়ী ইমারত নির্মাণ কাজ না করার জন্য বাধা দেন। এবং উভয় পক্ষকে জায়গার কাগজপত্র নিয়ে থানায় আসার নির্দেশ দেন।

এর ফাঁকে মিলন ও হিরন তার সঙ্গবদ্ধ দল নিয়ে বসত ঘরের সামনে স্থায়ী ইমারত নির্মাণ কাজ চালাচ্ছে। আমি বর্তমানে নিরুপায় হইয়া স্থানীয় সংসদ সদস্য মেজর (অবঃ) রফিকুল ইসলাম, বীর উত্তম, এমপি মহোদয় ও স্থানীয় প্রশাসনের নিকট সু-বিচার কামনা করছি।

অভিযোগকারী মিলন ও তার পরিবার জানান আমরা আমাদের চাচা নুর মিয়া থেকে তার বসত ভিটা খরিদ করি, খরিদ সূত্রে মালিক হইয়া সেই জায়গায় ইমারত নির্মাণ করছি, আমরা কারো জায়গা দখল করি নাই।

একই রকম খবর