শাহরাস্তিতে দুর্বৃত্তের হাতে স্বামী খুন: স্ত্রী জখম

স্বপন কর্মকার মিঠুন / রফিকুল ইসলাম পাটোয়ারী : চাঁদপুরের শাহরাস্তি পৌর এলাকায় দুর্বৃত্তের হাতে মোঃ নুরুল আমিন (৬৫) নামে অবসরপ্রাপ্ত সমাজসেবা কর্মকর্তা খুন হয়েছেন। একই ঘটনায় দুর্বৃত্তদের ধারালো অস্ত্রের আঘাতে গুরুতর আহত হয়েছেন তার স্ত্রী কামরুন নাহার(৫৫)।

বৃহস্পতিবার (০১ জুলাই) দুপুর দুইটার দিকে শাহরাস্তি থানা পুলিশ নুরুল আমিনের মরদেহ উদ্ধার করে এবং কামরুন নাহার কে উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করে।

নুরুল আমিন ১৯৯৭ সালে উপজেলার টামটা উত্তর ইউনিয়নের রাজাপুরা গ্রাম থেকে পৌরসভার ৪নং ওয়ার্ডের নাওড়া গ্রামে বাড়ি তৈরি করে বসবাস করে আসছেন। এই বাড়িতে তিনি ও তাঁর স্ত্রী বসবাস করতেন। স্ত্রী কামরুন নাহার পার্শ্ববর্তী কুমিল্লা জেলার বরুড়া উপজেলা সমাজসেবা কার্যালয়ে কর্মরত।

কামরুন্নাহার এর বড় বোন শিরিন বেগম বলেন, তার বোনের দুই মেয়ে ও এক ছেলে রয়েছে। পিতা মাতার খোঁজ না পেয়ে আজ বৃহস্পতিবার দুপুরে তার ছেলে জাকারিয়া বাবু পার্শ্ববর্তী লোকদেরকে ফোন করে। স্থানীয় লোকজন তাদের ঘরের দরজা বন্ধ দেখে তাকে জানায় ঘরের দরজায় রক্ত লেগে আছে। তাৎক্ষণিক বাবু বিষয়টি শাহরাস্তি থানায় জানায়।

থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আব্দুল মান্নান বলেন, ঘটনার সংবাদ পেয়ে চাঁদপুর থেকে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (অপরাধ ও প্রশাসন) সুদীপ্ত রায়, পিবিআই, সিআইডি, গোয়েন্দা পুলিশ ঘটনাস্থলে আসে। পুলিশের ৪টি ইউনিট গভীরভাবে ঘটনাটি তদন্ত করছে।

তিনি আরো বলেন, পুলিশ নুরুল আমিনের মরদেহ একতলা বাড়ির ছাদ থেকে উদ্ধার করে এবং তার স্ত্রীকে ঘরের মধ্যে আহতাবস্থায় পাওয়া যায়। তাকে চিকিৎসার জন্য ঢাকায় পাঠানো হয়েছে। তাদের ঘরে সমস্ত জিনিসপত্র সঠিকভাবে আছে। কোন কিছু এলোমেলো নাই । ডাকাতি হয়েছে বলেও মনে হয় না। ঘটনাটি খুবই রহস্যজনক।

অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (অপরাধ ও প্রশাসন) সুদীপ্ত রায় বলেন, নুরুল আমিনের মাথায় ও মুখে ধারালো অস্ত্রের আঘাত এবং গলায় দাগ রয়েছে। ক্ষত জায়গায় পচন ধরেছে। মনে হচ্ছে ঘটনাটি দু-তিন দিন আগের। এই মুহূর্তে আর বিশেষ কিছু বলা যাচ্ছে না।

একই রকম খবর