শাহরাস্তিতে নিখোঁজের ৪২ দিনেও জট খোলেনি

স্টাফ রিপোর্টার : চাঁদপুরের শাহরাস্তিতে পাঁচ বছরের শিশু খাদিজা আক্তার নিখোঁজের জট খোলেনি গত ৪২ দিনেও। একমাত্র সন্তানকে হারিয়ে চরম অনিশ্চতায় দিন কাটছে শিশুটির বাবা ও মায়ের। এরমধ্যে এ মামলায় গ্রেপ্তার দুই আসামিকে রিমান্ডে নিয়েছে পুলিশ।

রোববার (২৩ মে) দুপুরে শাহরাস্তি থানার ওসি আব্দুল মান্নান জানান, রিমান্ডে নেওয়া আসামিরা মুখ না খুললেও তাদের কাছ থেকে বেশকিছু গুরুত্বপূর্ণ তথ্য মিলেছে। দুইদিনের রিমান্ড শেষে শনিবার আদালতের মাধ্যমে আসামিদের জেলহাজতে পাঠানো হয়েছে।
মামলার অভিযোগে জানা গেছে, গত ১১ এপ্রিল শাহরাস্তি উপজেলার ছোটতুলা গ্রামের সাব্বির হোসেন ও ফাতেমা আক্তার দম্পতির একমাত্র সন্তান খাদিজা আক্তার(৫) বাড়ির উঠোনে খেলা করছিলেন। কিন্তু কয়েক ঘণ্টা পরও শিশুটি ঘরে না ফেরায় তার মা উঠানে খুঁজতে বের হন। ফলে দুপুর থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত সন্তানকে না পেয়ে শাহরাস্তি থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি করেন তিনি। পরে অভিযোগটি অপহরণ মামলায় রূপান্তর হয়।

মামলার বাদী ফাতেমা বেগমের অভিযোগ, এর আগে তার কাছে ৫০ হাজার টাকা ধার চেয়েছিল অভিযুক্তরা। তার ধারণা সেই টাকা না পেয়ে প্রতিবেশী শেখ ফরিদের দুই ছেলে রবিউল আলম (২৫) ও মো. ফরহাদ (৩০) ক্ষুব্ধ হয়ে অপহরণ করেছে। আর সেই ক্ষোভ থেকে শিশু খাদিজা আক্তারকে অপহরণ করে মাত্র ৩০ হাজার টাকার বিনিময় অন্যত্র বিক্রি করে দিয়েছে।

শাহরাস্তি থানার ওসি আব্দুল মান্নান জানান, নারী ও শিশু নির্যাতন দমন সংশোধিত ধারায় অপহরণে সহায়তা করার আইনের ঘটনার পরপরই একটি মামলা হয়। মামলার বাদী শিশুটির মা ফাতেমা বেগম। এটি তদন্তের দায়িত্ব দেওয়া হয় পুলিশের উপ-পরিদর্শক আব্দুল আউয়াল সরকারকে।

ওসি আরও জানান, চলতি মাসের ১২ তারিখে এই মামলার দুই আসামি রবিউল আলম ও তার ভাই মো. ফরহাদকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। নিখোঁজ শিশুর খোঁজ পেতে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আদালতে তাদের হাজির করা হয়। এসময় বিচারিক হাকিম দুই দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন। সবশেষ গত শুক্রবার এবং শনিবার মামলার তদন্ত কর্মকর্তারা জিজ্ঞাসাবাদ করেন।

একই রকম খবর