শাহরাস্তিতে পরকীয়ার জেরে খুন হন রিপন, স্বামী-স্ত্রী আটক

চাঁদপুরের শাহরাস্তিতে যুবক খুনের রহস্য এক দিনেই উন্মোচন করেছে পুলিশ। এ ঘটনায় জড়িত ২ জনকে আটক করা হয়। আটকরা হচ্ছেন শাহরাস্তির গঙ্গারামপুর গ্রামের ফজলুর রহমান (৪৫) ও তার স্ত্রী। শনিবার (২৪ জুলাই) দুপুরে পুলিশ সুপার কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য জানান পুলিশ সুপার মিলন মাহমুদ।

আটকরা পুলিশি জিজ্ঞাসাবাদে জানায়, মৃত যুবক বেলায়েত হোসেন রিপনের সঙ্গে আটক নারীর পরকীয়া সম্পর্ক ছিল। সেই সম্পর্কের সূত্র ধরে ২২ জুলাই রাতে রিপন ওই নারীর সঙ্গে দেখা করতে যায়। ওই নারীর স্বামী ফজলুর রহমান তাকে দেখে ফেললে রিপন দৌড় দেয়।

কিছু দূর সামনেই নাইলনের জালে আটকা পড়ে রিপন। তখন ফজলুর রহমান তার হাতে থাকা বাঁশের লাঠি দিয়ে রিপনের মাথার পেছনে আঘাত করলে ঘটনাস্থলেই তার মৃত্যু হয়। এরপর ফজলুর রহমান ও তার স্ত্রী মিলে রিপনের লাশ বিলে পানিতে ভাসিয়ে দেয়।

পুলিশ সুপার মিলন মাহমুদ বলেন, শুক্রবার সকালে রিপনের লাশ উদ্ধার করা হয়। এর পর পুলিশ ঘটনার রহস্য উন্মোচনে কাজ শুরু করে। অল্প সময়ের মধ্যে আমরা ঘটনা সম্পর্কে জানতে পারি। নিহত যুবকের সঙ্গে আটক গৃহবধূর পরকীয়া সম্পর্ক ছিল। ঘটনার রাতে রিপন ওই নারীর সঙ্গে দেখা করতে গেলে তার স্বামী তাদের দেখে ফেলে। এরপর স্বামী-স্ত্রী ওই হত্যাকাণ্ড ঘটায়।

উল্লেখ্য, শাহরাস্তিতে শুক্রবার (২৩ জুলাই) রায়শ্রী উত্তর ইউনিয়নের উত্তর গঙ্গারামপুর মাঠ থেকে বেলায়েত হোসেন রিপন (৩৫) নামের এক যুবকের লাশ উদ্ধার করা হয়। শুক্রবার নিহত রিপনের স্ত্রী কুলসুম বেগম বাদী হয়ে শাহরাস্তি থানায় হত্যা মামলা দায়ের করেন।

একই রকম খবর