শিক্ষকদের গবেষণার কাজে মনোযোগী হতে হবে : শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি

চাঁদপুর খবর ডেস্ক : দেশের ১৩টি শতবর্ষী সরকারি কলেজ ‘সেন্টার অব এক্সিলেন্স’ হবে বলে জানিয়েছেন শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি। তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশ দ্রুতগতিতে এগিয়ে যাচ্ছে। তবে বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের সোনার বাংলাদেশ গড়ে তুলতে সোনার মানুষ প্রয়োজন। সে লক্ষ্যে কাজ করছে সরকার।

শুক্রবার (২৭ ডিসেম্বর) দুপুরে ঐতিহ্যবাহী রাজশাহী কলেজে এইচএসসি অ্যালামনাইয়ের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে তিনি একথা বলেন।

শিক্ষার মান বাড়ানোর দিকে নজর দেওয়ার আহ্বান জানিয়ে শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি বলেন, শিক্ষার উন্নয়নে শিক্ষকদের পিছনে বিনিয়োগ করতে হবে। শিক্ষকদের গবেষণার কাজে মনোযোগী হতে হবে। আগামী বিশ্বের চ্যালেঞ্জ মোকাবিলায় মানবসম্পদের উন্নয়ন জরুরি। এজন্য সরকার সব ধরনের সহযোগিতা দেবে। দেশের প্রচীনতম ঐতিহ্যবাহী এ রাজশাহী কলেজে ১০ তলা বিশিষ্ট ছাত্রী নিবাস ও প্রশাসনিক ভবন নির্মাণসহ সব সমস্যা সমাধানে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নেওয়ার আশ্বাস দেন মন্ত্রী। এসময় শিক্ষামন্ত্রী উল্লেখ করে বলেন, রাজশাহী কলেজসহ দেশের ১৩টি ঐতিহ্যবাহী শতবর্ষী কলেজকে নতুন করে ঢেলে সাজানোর উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের অধীনে থাকা এই শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলো পরিচালিত হবে একটি নেটওয়ার্কিংয়ের মাধ্যমে। এই ঐতিহ্যবাহী শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলোকে ‘সেন্টার অব এক্সিলেন্স’ হিসেবে গড়ে তোলা হবে। শিক্ষা পদ্ধতিকে এমন একটি পর্যায়ে নিয়ে যাওয়া হবে যেন একসময় আন্তর্জাতিক পরিমণ্ডলে বাংলাদেশের শিক্ষাব্যবস্থাকে একটি স্ট্যান্ডার্ড হিসেবে ধরা হয়।

মন্ত্রী বলেন, চতুর্থ শিল্প বিপ্লবের কারণে আগামী দিনের শ্রমবাজার দখল করবে আর্টিফিসিয়াল ইন্টেলিজেন্স ও রোবট। চতুর্থ শিল্পবিল্পবের এ চ্যালেঞ্জ মোকাবিলায় সরকার দক্ষ মানবসম্পদের ওপর গরুত্ব দিচ্ছে। পরিবর্তিত বিশ্বে আমাদের নতুন নতুন পরিস্থিতির সম্মুখীন হতে হয়। শিক্ষাক্ষেত্রে বিনিয়োগ জিডিপির ৬ শতাংশে উন্নীত করার লক্ষ্যে সরকার কাজ করছে। মন্ত্রী বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা নির্বাচনী ইশতেহারে ঘোষণা অনুযায়ী শিক্ষার মানোন্নয়নে সর্বাধিক গুরুত্ব দেওয়া হয়েছে। প্রতিটি স্কুল-কলেজ ও বিশ্ববিদ্যালয়ে কম্পিউটার ল্যাব স্থাপন করা হয়েছে, শিক্ষাপদ্ধতি ও মূল্যায়ন পদ্ধতির পরিবর্তন এবং শিক্ষার্থীদের সফটওয়্যার স্কিল শেখানোর ওপর জোর দেওয়া হয়েছে। এর আগে বেলুন, ফেস্টুন ও পায়রা উড়িয়ে শিক্ষামন্ত্রী রাজশাহী কলেজ মাঠে কলেজের এইচএসসি অ্যালামনাই অনুষ্ঠানের উদ্বোধন করেন। পরে মন্ত্রী অতিথিদের সবাইকে নিয়ে অ্যালামনাই অনুষ্ঠানের কেক কাটেন। অনুষ্ঠানে পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলম ও তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক এসময় বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে বক্তব্য রাখেন।

রাজশাহী কলেজের অধ্যক্ষ প্রফেসর মো. হবিবুর রহমানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে সংসদ সদস্য আব্দুল কুদ্দস, আয়েন উদ্দিন, সংসদ সদস্য ও অ্যালামনাই ঢাকা কমিটির আহ্বায়ক ইঞ্জিনিয়ার মাহতাব উদ্দীন, রাজশাহী সংরক্ষিত নারী আসনের সংসদ সদস্য আবিদা আঞ্জুম মিতা, সাবেক সংসদ সদস্য আখতার জাহান, আওয়ামী লীগ নেতা নুরুল ইসলাম ঠাণ্ডুসহ সাবেক নির্বাচন কমিশন, বিচারপতি, ডাক্তার, ইঞ্জিনিয়ারসহ সরকারি ঊধ্বর্তন কর্মকর্তারা অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন।

দেশের ১৩টি ঐতিহ্যবাহী শতবর্ষী কলেজকে নতুন করে ঢেলে সাজানোর উদ্যোগ নিয়েছে জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়। এই শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলো পরিচালিত হবে একটি নেটওয়ার্কিংয়ের মাধ্যমে। শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি এই ঐতিহ্যবাহী শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলোকে ‘সেন্টার অব এক্সিলেন্স’ হিসেবে গড়ে তোলার ঘোষণা দিয়েছেন। ঐতিহ্যবাহী এসব প্রতিষ্ঠানের মধ্যে প্রথমেই রয়েছে রাজশাহী কলেজ। এছাড়া শতবর্ষী কলেজগুলোর মধ্যে রয়েছে- চট্টগ্রাম কলেজ, চট্টগ্রামের হাজি মুহম্মদ মহসিন কলেজ, নড়াইলের ভিক্টোরিয়া কলেজ, বরিশালের ব্রজমোহন (বিএম) কলেজ, সিলেটের মুরারিচাঁদ (এমসি) কলেজ, পাবনার এডওয়ার্ড কলেজ, কুমিল্লা ভিক্টোরিয়া কলেজ, খুলনার ব্রজলাল (বিএল) কলেজ, ময়মনসিংহের আনন্দ মোহন কলেজ, রংপুরের কারমাইকেল কলেজ, বাগেরহাটের প্রফুল্লচন্দ্র (পিসি) কলেজ, ও ফরিদপুরের রাজেন্দ্র কলেজ।

একই রকম খবর