চাঁদপুরে সংগীত নিকেতনের সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান

জাতীয় কবি, বিশ্বমানবের সার্থক প্রতিভু, চির বিদ্রোহী কবি কাজী নজরুল ইসলাম স্মরণে চাঁদপুর সংগীত নিকেতনের আয়োজনে চিত্রাংকন প্রতিযোগিতা, পুরস্কার বিতরন ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান পরিবেশিত হয়েছে।

২০ সেপ্টেম্বর বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় চাঁদপুর জেলা শিল্পকলা একাডেমি মিলনায়তনে সাংস্কৃতি অনুষ্ঠানের পূর্বে সংক্ষিপ্ত আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়।

এতে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন, জেলা প্রশাসক মো. মাজেদুর রহমান খান। তিনি তার বক্তব্যে বলেন, জাতীয় কবি, বিশ্বমানবের সার্থক প্রতিভু, চির বিদ্রোহী কবি কাজী নজরুল ইসলামের বিভিন্ন গান ও কবিতায় নজরুল আমাদের মাঝে উদয় হয়। আজকে অনুষ্ঠানে নজরুল ইসলামকে নিয়ে যে কবিতা ও সংগীত পরিবেশিত হয়েছে এর মধ্যে তার আত্মজীবনী ফুটে উঠেছে। তিনি এমন একজন মানুষ ছিলেন যাকে নিয়ে ঘন্টার পর ঘন্টার ও দিনের পর দিন আলোচনা করলেও তার গুনের কথা শেষ হবে।

তিনি আরো বলেন, নজরুল এমন একজন মানুষ ছিলেন যার কবিতা, কথায় শুধু দেশপ্রেম আর ভালোবাসা ছিলো বেশি। তার জীবনী অনুসরণ করে চললে সহজেই জীবনকে সুন্দর ভাবে গড়া যাবে। আমাদের সকলের ভিতরে নজরুলকে লালন করতে হবে।

বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন, পুলিশ সুপার মো. জিহাদুল কবির, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) মো. জামাল হোসেন, দৈনিক চাঁদপুর কণ্ঠের প্রধান সম্পাদক ও চাঁদপুর সাহিত্য একাডেমির মহা পরিচালক রোটাঃ কাজী শাহাদাত, সপ্তসুর সংগীত একাডেমীর অধ্যক্ষ রূপালী চম্পক, সময় টেভিটির জেলা প্রতিনিধি ফারুক আহমেদ।

সংগীত নিকেতনের সাধারণ সম্পাদক জীবন কানাই চক্রবর্তীর সভাপতিত্বে স্বাগত বক্তব্য রাখেন অধ্যক্ষ স্বপন সেনগুপ্ত।
অনুষ্ঠানে সার্বিক তত্ত¡াবধায়নে ছিলেন, সত্য চক্রবর্তী, বাবুল চক্রবর্তী।

সংগীত পরিচালনায় ছিলেন সৈকত সাহা, শান্তি রক্ষিত ও বিচিত্রা সাহা। যন্ত্র সংগীতে ছিলেন দিপক চক্রবর্তী, অনিক নন্দী, প্লাবন ভট্রাচায্য। চিত্রাংকন প্রতিযোগিতা পরিচালনা করেন, অমল সেনগুপ্ত, সহযোগিতায় বিমল দে, পলাশ সেনগুপ্ত, মনির হোসেন মান্না। আবৃত্তি শিল্পী নূরে আলম ও ফয়সাল মৃধা। সংগীত পরিবেশন করেন, শিল্পী ঘোষ, অরুন্ধতী দাশ, নিশি ঘোষ, সাদিয়া ইসলাম, তাহমিদ, ইন্দিরা দাস, রিমি দত্ত, সঞ্চরী পোদ্ধার, শ্রাবন্তী মজুমদার, রাজনন্দিনী সরকার, অপেষা দে, তনুশ্রী পাল, কাব্য কনিকা, আশিক পোদ্ধার, সারাফ ওয়ামিয়া, রিয়া চক্রবর্তী, মাশরুর সাদ ইমাদ, পূরবী দে সিমান্তি, অর্পিতা ঘোষ, সত্য চক্রবর্তী, বাবুল চক্রবর্তী, শংকর চক্রবর্তী, শন্তি রক্ষিত, সৈকত সাহাসহ আরো অনেকে।

সবশেষে চিত্রাংকন ও সুন্দর হাতের লেখা প্রতিযোগিায় ৪০ জন বিজয়ীদের হাতে পুরস্কার তুলে দেন অতিথিবৃন্দ।

একই রকম খবর

Leave a Comment