সংবাদ বয়কট সম্পর্কে মতলব দক্ষিণ উপজেলা প্রশাসনের বক্তব্য

“চাঁদপুরের মতলব দক্ষিণ উপজেলা প্রশাসনের সকল সংবাদ বয়কট করলেন কর্মরত সাংবাদিকবৃন্দ” শিরোনামে প্রকাশিত সংবাদের প্রেক্ষিতে গত ২৫ জুলাই লিখিত ভাবে এক প্রতিবাদ লিপি পাঠিয়েছেন মতলব দক্ষিণ উপজেলা নিবাহী অফিসার ফাহমিদা হকসহ উপজেলা চেয়ারম্যান এবং উপজেলা পর্যায়ের কর্মকর্তাগন ।

প্রতিবাদ লিপিতে স্বাক্ষরিত মতলব দক্ষিণ উপজেলা নিবাহী অফিসার ফাহমিদা হকসহ উপজেলা চেয়ারম্যান এবং উপজেলা পর্যায়ের কর্মকর্তাগনের স্বাক্ষর রয়েছে ।

প্রতিবাদ লিপিতে মতলব উপজেলা প্রশাসন জানান, কেন্দ্রীয় কর্মসূচীর অংশ হিসেবে উপজেলা সিনিয়র মৎস্য কর্মকর্তার দপ্তর, মতলব দক্ষিণ এর আয়োজনে জাতীয় মৎস্য সপ্তাহ ২০২২ উদযাপন উপলক্ষে উদ্বোধন অনুষ্ঠান, আলোচনা সভা ও উপজেলা পর্যায়ের শ্রেষ্ঠ মাছ চাষীদের মাঝে পুরস্কার বিতরণের জন্য ২৪/০৭/২০২২খ্রিঃ তারিখে ধার্য্য ছিলো।

উক্ত অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের মাননীয় পরিকল্পনা প্রতিমন্ত্রী ড. শামছুল আলম, বিষয় অতিথি চাঁদপুর- ০২ (মতলব উত্তর-মতলব দক্ষিণ) আসনের মাননীয় সংসদ সদস্য মো. নুরুল আমিন, মতলব দক্ষিণ উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ভাইস চেয়ারম্যানগণ, মতলব পৌরসভার মেয়র, উপজেলার বিভিন্ন দপ্তরের সরকারি কর্মকর্তাগণ এবং উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতিসহ স্থানীয় আওয়ামী লীগের নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

বৃষ্টির কারনে অনুষ্ঠান শুরু করতে দেরী হওয়ায় বিভিন্ন ইউনিয়ণ থেকে আগত জেলেগণ উপজেলা পরিষদের হল রুমের ৩য়, ৪র্থ ও ৫ম সারিতে বসেন। ১ম ও ২য় সারিতে রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দ বর্গসহ সরকারি অফিসারগণ বসেন। স্থানীয় সাংবাদিকবৃন্দ কিছুটা বিলম্বে উপজেলা পরিষদের হল রুমে প্রবেশ করায় সামনের সারিতে বসতে না পেরে পেছনের সারিতে বসেন। উল্লেখ যে অনুষ্ঠান চলাকালিন ১ম, ২য়, ৩য় সারিতে বিচ্ছিন্নভাবে কয়েকটি আসন খালি ছিলো (সিসিটিভি ফুটেজ রয়েছে)।

তাই সাংবাদিকবৃন্দের পিছনে বসা উপজেলা প্রশাসনের ইচ্ছাকৃত বিষয় নয়। অনুষ্ঠান শুরুর কিছু সময় পরে মাননীয় প্রধান অতিথি ও বিশেষ অতিথির উপস্থিতিতে শিষ্ঠাচার বহির্ভূতভাবে উপস্থিত সাংবাদিকগণ অনুষ্ঠানস্থল ত্যাগ করে চলে যান এবং উপজেলা প্রশাসনের সকল সংবাদ বয়কট করা হবে মর্মে ফেসবুক পোস্ট করেন যা অনাকাঙ্খিত।

উপজেলা প্রশাসনের বিভিন্ন বড় আকারের অনুষ্ঠানে আসন ট্যাগ করার একাধিক নজির রয়েছৈ। সেখানে ১৫-২০টি আসন সাংবাদিকবৃন্দের জন্য ট্যাগে সংরক্ষিত থাকে। সাংবাদিকগণকে অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণ করার জন্য পত্রের মাধ্যমে, মোবাইলে ও সরাসরি আমন্ত্রণ জানানো হয়। তথাপিও সাংবাদিকবৃন্দ অনুপস্থিত থাকেন যার ফলে ট্যাগকৃত আসনগুলোর বেশিরভাগই আসন খালির থাকার নজির রয়েছে ( এ সংক্রান্ত সিসিটিভির ফুটেজ আছে)।

মতলব দক্ষিণ উপজেলা প্রেসক্লাবের কোন কমিটি না থাকায় প্রত্যেক সাংবাদিকগণের নামে আলাদাভাবে পত্র ইস্যু করতে হয় এবং আলাদাভাবে মোবাইলে দাওয়াত করতে হয় যা অনেক কষ্ট সাধ্য ব্যাপার।

২৫/০৭/২০২২খ্রিঃ তারিখে দৈনিক চাঁদপুর খবর সহ বেশ কয়েকটি পত্রিকায় “চাঁদপুরের মতলব দক্ষিণ উপজেলা প্রশাসনের সকল সংবাদ বয়কট করলেন কর্মরত সাংবাদিকবৃন্দ” শিরোনামে সংবাদ প্রকাশিত হয়েছে। উদ্দেশ্য প্রণোদিতভাবে এ ধরনের সংবাদ প্রকাশ করায় উপজেলা প্রশাসনের শুনাম ক্ষুন্ন হয়েছে যা সরকারের কর্মকাণ্ড পরিচালনায় বিরাট অন্তরায়। আমরা মতলব দক্ষিণ উপজেলা প্রশাসনের কর্মরত সকল বিভাগের কর্মকর্তাগণ প্রকাশিত এই সংবাদের তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাচ্ছি।

প্রতিবাদ জানিয়েছেন- মতলব দক্ষিণ উপজেলা নির্বাহী অফিসার ফাহমিদা হক, উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান বিএইচএম কবির আহমেদ, সহকারি কমিশনার ভূমি সেটু কুমার, উপজেলা স্বাস্থ্য ও প: প: কর্মকর্তা ডা. নুসরাত জাহান মিথেন, উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা ফয়সাল মোহাম্মদ আলী, উপজেলা প্রাণি সম্পদক সম্প্রসারণ কর্মকর্তা ডা. মো. হাফিজুর রহমান, উপজেলা পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা আ.ত. ম বোরহান উদ্দিন, উপজেলা মৎস্য কর্মকর্তা মো. শাখাওয়াত হোসেন, মতলব দক্ষিণ থানার অফিসার ইনচার্জ, উপজেলা প্রকৌশলী মো. জাকির হোসেন মজুমদার, উপজেলা সমাজসেবা কর্মকর্তা মো. রুহুল আমিন, উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তা নাজমুন নাহার, উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা মো. রবিউল ইসলাম খান।

উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা মো. আবদুর রহিম খান, উপজেলা রিসোর্স সেন্টারের ইন্সট্রাক্টর মোহাম্মদ ছরওয়ার হোসেন, উপসহকারী প্রকৌশরী (জনস্বাস্থ্য) মো. ফরিদ হোসেন, উপসহকারী প্রকৌশলী (বিএডিসি ক্ষুদ্র সেচ) মো. মেহেদী হাছান ভূঞা, উপজেলা হিসাব রক্ষণ কর্মকর্তঅ মো. মিজানুর রহমান, উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা মো. আবু জাহের ভূঞা, উপজেলা সমবায় কর্মকর্তা মো. মোখলেছুর রহমান, উপজেলা পরিসংখ্যা কর্মকর্তা মো. সিরাজুল ইসলাম, চাঁদপুর পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি ২ এর ডিজিএম মো. সহিদুল ইসলাম, উপজেলা মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা নাজনীন আফরোজ,

উপজেলা পল্লী উন্নুয়ন কর্মকর্তা মো. আবুল হাসানাত, উপজেলা যুব উন্নয়ন কর্মকর্তা মো. ফারুক হোসেন, উপজেলা আনসার ও ভিডিপি কর্মকর্তা মো. সাকিব মাওলা, সহকারী প্রোগ্রামার পার্থ প্রতীম ঘোষ, মতলব দক্ষিণ ফায়ার সার্ভিস স্টেশন অফিসার মো. আসাদুজ্জামান, উপ খাদ্য পরিচালক মো. ফিরোজ মিয়া, উপজেলা পল্লী সঞ্চয় ব্যাংক শাখার ব্যবস্থাপক মো. মুরাদ হোসেন পাটোয়ারী ও তথ্যসেবা কর্মকর্তা মোছা. তাছলিমা খাতুন।

এ ব্যাপারে মতলব প্রেসক্লাবের সাবেক সভাপতি গোলাম সারোয়ার সেলিম গতকাল দৈনিক চাঁদপুর খবর পত্রিকাকে জানান,বিষয়টি নিয়ে গতকাল মতলব দক্ষিণ উপজেলা চেয়ারম্যানের মাধ্যমে মতলব দক্ষিণ উপজেলা নিবাহী অফিসার মহোদয়ের সাথে সাংবাদিকদের বিরোধটি সমাধান হয়েছে । এ নিয়ে আমাদের আর কোন বক্তব্য নেই ।

আমরা সাংবাদিকরা আমাদের পেশাদায়িত্ব নিয়ে কাজ করে যাবো ।সেই সাথে প্রশাসনের সকল পজিটিভ কাজের সহযোগিতা করবো ।

একই রকম খবর