সনাক-চাঁদপুরের নতুন কমিটি গঠন

প্রেস বিজ্ঞপ্তি : জনগণের মধ্যে দুর্নীতি প্রতিরোধ ও সুশাসন প্রতিষ্ঠার ব্যাপক চাহিদা সৃষ্টির মাধ্যমে দুর্নীতিবিরোধী সামাজিক আন্দোলনকে আরও বেগবান করার লক্ষ্যে বিভিন্ন রকমের সচেতনতামূলক কর্মসূচি পালন করে যাচ্ছে সনাক-চাঁদপুর।

পাশাপাশি সনাক চাঁদপুর স্থানীয় পর্যায়ে বিভিন্ন সেবামূলক খাত যেমন : শিক্ষা, স্বাস্থ্যসেবা, স্থানীয় সরকার, ভূমি প্রশাসন ও জলবায়ূ অর্থায়নে সুশাসন ইত্যাদি বিষয়ে সেবার মান, অব্যবস্থাপনা ও দুর্নীতির স্বরূপ উদ্ঘাটনসহ সমস্যাসমূহ দূরীকরণে সুপারিশ সম্বলিত বিভিন্ন কার্যক্রম পরিচালনা করছে।

টিআইবি’র অনুপ্রেরণায় গঠিত সচেতন নাগরিক কমিটি (সনাক), চাঁদপুর এছাড়াও দুর্নীতিবিরোধী আন্দোলনকে সামাজিক আন্দোলনে আরও জোরদার করার লক্ষ্যে সরকারি বে-সরকারি বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের দুর্নীতি হ্রাস, স্বচ্ছতা ও জবাবদিহিতা বৃদ্ধি, সেবার মানোন্নয়ন, সুবিধাবঞ্চিত নারী-পুরুষের অংশগ্রহণের মাধ্যমে সুশাসন প্রতিষ্ঠা ও টেকসই উন্নয়নের লক্ষ্যে বিভিন্ন কার্যক্রম পরিচালনা করছে।

সনাকের এ ধরনের কার্যক্রমগুলোকে সুষ্ঠু, সুশৃঙ্খল ও সুন্দরভাবে পরিচালনার জন্য নেতৃত্বের ধারাবাহিক পরিবর্তনের অংশ হিসেবে গত ০৭ অক্টোবর ২০১৮ সনাক মাসিক সাধারণ সভায় উপস্থিত সকলের মতামতের ভিত্তিতে সনাকের সাবেক সহ-সভাপতি এবং বাবুরহাট স্কুল এন্ড কলেজের অধ্যক্ষ মোঃ মোশারেফ হোসেন-কে সভাপতি, হাসান আলী মডেল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক ইসমত আরা সাফি বন্যা এবং সাবেক সনাক সদস্য ও হাসান আলী সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়ের সাবেক সিনিয়র শিক্ষক মোঃ আব্দুল মালেক-কে সহ-সভাপতি হিসেবে মনোনীত করা হয়। এ কমিটি আগামী এক বছর (নভেম্বর’১৮-অক্টোবর’১৯) পর্যন্ত দায়িত্ব পালন করবে। সনাক-চাঁদপুরের অন্য সদস্যবৃন্দ হলেন : প্রফেসর মনোহর আলী, কাজী শাহাদাত, আলহাজ্ব অধ্যাপক মোহাম্মদ হোসেন খান, ডাঃ মোঃ এ.কিউ. রুহুল আমিন, কৃষ্ণা সাহা, মোঃ আব্বাস উদ্দিন, সবিতা বিশ্বাস, ডাঃ পীযুষ কান্তি বড়–য়া, শাহানারা বেগম, মোঃ আব্দুস সামাদ দেওয়ান, ডাঃ ছাবেরা ইসলাম, মাহমুদ হাসান খান, মোঃ আলমগীর পাটওয়ারী, এ.বি.এম. নজরুল আমিন সাজু, জেসমিন আক্তার, অ্যাডভোকেট পলাশ মজুমদার, রফিক আহমেদ মিন্টু ও তৃপ্তি সাহা

উল্লেখ্য, সচেতন নাগরিক কমিটি (সনাক)-এর ম্যানুয়ালের ৩(ঙ) ধারা অনুযায়ী প্রতি এক বছর অন্তর অন্তর সনাকের নেতৃত্ব পরিবর্তন হবে। এক বছর পূর্ণ হওয়ার পর তাদের নেতৃত্ব ও কর্মকাÐ পর্যালোচনা এবং মূল্যায়নের প্রেক্ষিতে একজন সর্বোচ্চ চার বার (চার বছর) মনোনীত হতে পারবেন। সেই পরিপ্রেক্ষিতে জনাব কাজী শাহাদাত ও অধ্যক্ষ মোঃ মোশারেফ হোসেনের মেয়াদ সর্বোচ্চ চার বার (চার বছর) দায়িত্ব শেষে নতুন কমিটি গঠন করা হয়। নব নির্বাচিত কমিটি ১৭ নভেম্বর ২০১৮ থেকে দায়িত্ব গ্রহণ করেছেন।

একই রকম খবর

Leave a Comment