হাইমচরে দূর্গাপুর সপ্রাবি’ র প্রধান শিক্ষক শ্রেণি কক্ষে গড়ে তুলেছেন বসতঘর!

হাইমচর প্রতিনিধিঃ চাঁদপুর জেলা হাইমচর উপজেলার ৮ নং দূর্গাপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে প্রধান শিক্ষক মোঃ জহিরুল ইসলাম নিজের ক্ষমতা দাপট খাটিয়ে শ্রেণীকক্ষে গড়ে তুলেছে বসতঘর। হাইমচর উপজেলার ২ নং আলগী উত্তর ইউনিয়নের রায়ের বাজারে স্থাপিত সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে কক্ষে দীর্ঘ দিন ধরে বসবাস করে আসছেন।

বিদ্যালয়ের প্রায় ২৬৭ জন শিক্ষার্থীদের লেখার পড়ার জন্য ২য় তলায় ৩ টি ও নিচতলা ক্লাস উপযোগী ১ টি কক্ষ রয়েছে। বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির সদস্যদের বারন সত্ত্বেও নিজের প্রভাব খাটিয়ে শ্রেণীকক্ষ দখল করে থাকার ব্যবস্থা করেছেন।

সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায় কক্ষে ভিতরে খাট, ফ্রিজসহ নানান আসবাবপত্র রয়েছে। এ ব্যাপারে এক অভিভাবক সদস্য জানান, আমরা প্রধান শিক্ষক কে বার বার চলে যেতে বল্লেও তিনি কোন কর্ণপাত নেননি। আপনাদের লিখনীর মাধ্যমে যদি কিছু একটা হয়।

এ ব্যাপারে প্রধান শিক্ষক মোঃ জহিরুল ইসলাম জানান, আমি বিদ্যালয়ের সভাপতির অনুমতি ক্রমে স্টোর রুমে থাকতেছি। আমি এখান থেকে কিছু দিনের মধ্যে চলে যাবো। থাকার বিষয় আমাদের উপজেলা শিক্ষা অফিসার অবগত আছেন। তাকে জানিয়ে আমি এখানে ছিলাম। আমি চলে যেতেমার আরো আগে রাস্তার পাশে ড্রেন থাকায় মামলপত্র নিয়ে যেতে পারিনি।

এ ব্যাপারে হাইমচর উপজেলা শিক্ষা অফিসার মোঃ মিজানুর কর্মরত সাংবাদিকরা সরেজমিনে গেলে প্রশাসনের চোখ ফাঁকি দেওয়া শিক্ষক আসবাবপত্র নিয়ে স্কুল ত্যাগ করহমান জানান আমাকে কোন প্রকার অবগত করেনি বরং এ বিষয় একটি অভিযোগ পেয়েছি। বিষয়টি প্রধান শিক্ষক কে ডেকে এনে তার কাছে জেনে আপনাদের জানাবো।

হাইমচরের ৮ নং দূর্গাপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে অভিভাবক সদস্য ও সুধি সমাজের মাঝে একই প্রশ্ন এতোদিন কোন আইনে স্কুলের রুম দখলে করে রেখেছেন। তার কোন আইনি প্রক্রিয়া অপরাধী কিনা তা খতিয়ে দেখা জন্য প্রশাসনের কাছে সমাজে সচেতন জনতা জানতে চায়।

একই রকম খবর