হাইমচরে সাংবাদিকের শিশু পুত্রের মৃত্যু নিয়ে গুঞ্জন

হাইমচর প্রতিনিধিঃ চাঁদপুর জেলা হাইমচর উপজেলার প্রেসক্লাবে সদস্য সাংবাদিক আমির হোসেন মানিকের শিশু পুত্র আবদুল্লাহ ( ১৬মাস) উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স নার্সের ভূলের কারনে মৃত্যু হয়েছে বলে গুঞ্জন শুনা যাচ্ছে। তবে এখন পযর্ন্ত শিশু টি মৃত্যু নিয়ে পরিবারের পক্ষ থেকে কোন লিখিত অভিযোগ পাওয়া যায়নি।

গতকাল বুধবার সকাল নয়টায় শিশু আবদুল্লাহ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যায়।গত ১৩ সেপ্টেম্বর শিশু টি কে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। বুধবার সকালে হাসপাতালে নার্স গীতা রানী শিশু টি সেফটাজিডিম ৫০০ এমজি ইনজেকশন শীরা পথে পুশ করার ৫ মিনিটের পর শিশু টি মারা যায়। এ ব্যাপারে নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একজন চিকিৎসক বলেন এ ধরনের ইনজেকশন শিশুদের ধীর গতিতে দিতে হয়। দ্রুত গতিতে দিলে শিশুরা হার্ড স্টোক করে মৃত্যু কোলে ঢলে পড়ে।

এ ব্যাপারে ডিউটিরত নার্স গীতা রানী জানতে চাইলে তিনি কিছুই জানে না বলে জানান। এ ব্যাপারে একজন চিকিৎসক কাছে শিশু মৃত্যু হতে পারে কারন জানতে চাইলে তিনি জানান যদি ইনজেকশন মেয়াদ উত্তির্ন হলে গেলে, পাউডার ভালো ভাবে মিশ্রণ না করে পুশ করা এবং খুব দ্রুত গতিতে ইনজেকশন পুশ করলে। তখনি শিশুটি হার্ট স্টোক করেছে।

এ ব্যাপারে মৃত্যু শিশু টি ফুফা আবুল কালাম আজাদ জানান, সংবাদ পেয়ে ছুটে এসেছি। শিশু টি ছোট মানুষ টানাহেঁচড়ার করবে বলে প্রাথমিক ভাবে অভিযোগ না করলেও তবে অভিযোগ করার প্রস্তুতি নিচ্ছি। নার্সের অবহেলায় বাচ্চা মৃত্যু হয়েছে আমার ধারনা।

এ ব্যাপারে ডাঃ বেলায়েত হোসেন জানান মায়ের বুকের দুধ খাওয়া শিশু টি বুকে আটকে মারা গেছে। তবে ময়নাতদন্তের করলে বের হয়ে আসবে মৃত্যুর আসল রহস্য।

 

একই রকম খবর