হাজীগঞ্জে দুর্বৃত্তের আগুনে পুড়ে দোকান ছাই

হাজীগঞ্জে দুর্বৃত্তের আগুনে পুড়ে এক যুবকের দোকানঘর পুরাপুরি ছাই হয়ে যায়। এতে চাল, ডাল, লবন, তেল, সিলেন্ডার গ্যাসসহ বিভিন্ন মালামাল পুড়ে ছাই হয়ে প্রায় ৭ লক্ষ টাকার ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে বলে দাবি করা হয়। বৃহস্পতিবার শেষ রাতের দিকে এ দুর্ঘটনা ঘটেছে বলে স্থানীয়দের ধারণা।

জানা যায়, উপজেলার গন্ধর্ব্যপুর উত্তর ইউনিয়নের ২নং ওয়ার্ড সর্বতারা হাজী বাড়ি স্কুল মাঠের সামনে গত কয়েক বছর পূর্বে স্থানীয় যুবক আকবর মিয়া মুদি মালামালসহ ভ্যারাটিজ স্টোর দেয়। গ্রামের একমাত্র দোকান হিসাবে নগদ বাকিতে এলাকাবাসীকে এক প্রকার সেবা দিয়ে আসছে আকবর মিয়া।

বৃহস্পতিবার সকালে এসে আকবর মিয়া দেখে দোকানের সব মালামাল কয়লায় রূপান্তরিত হয়ে আছে। এমন দৃশ্য দেখে সে একপ্রকার পাগলের মত হাউমাউ করে কান্নাজড়িতকণ্ঠে বলেন, আমার দোকানের লক্ষ লক্ষ টাকার মালামাল পুড়েছে, সেই সাথে গত কয়েক বছরের দোকানের বাকি হিসাব নিকাশের খাতাগুলো যদি অক্ষত থাকতো তাহলেও আমি মানুষের কাছ থেকে বাকি টাকা তুলতে পারতাম। এখন আমার মা বাবা, পরিবারের কি হবে, আমরা কোথায় থেকে জীবিকা নির্বাহ করবো বলে কান্নায় ভেঙ্গে পড়তে দেখা যায়।

এ বিষয়ে স্থানীয় মাহবুব, শফিক, হাতেম মিয়া বলেন, বুধবার শেষ রাতের দিকে আগুনের তান্ডব দেখা যায়। আমরা এসে কোন মালামাল রক্ষা করতে পারিনি। প্রাথমিক ভাবে ধারনা করা যায়, কেউ পরিকল্পিত ভাবে দোকানে আগুন লাগিয়েছে।

গন্ধর্ব্যপুর উত্তর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান রফিকুল ইসলাম বলেন, আগুনের খবর শুনেছি, দেখি দোকানের মালিককে কিভাবে সহযোগিতা করা যায়।

একই রকম খবর