হাজীগঞ্জ পৌরসভায় প্রথম সিইও হিসেবে যোগ দিবেন ইনামুল হাছান

হাজীগঞ্জ পৌরসভাসহ দেশের প্রথম শ্রেণির চার পৌরসভায় প্রশাসন ক্যাডারের কর্মকর্তা হিসেবে চারজন সহকারী কমিশনার যোগ দিচ্ছেন। রাষ্ট্রপতির আদেশক্রমে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের উপ-সচিব আবু কাউসার খান স্বাক্ষরিত জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের প্রেষন-২ শাখা হতে রোববার (৮ আগষ্ট) প্রকাশিত এক প্রজ্ঞাপন (নং- ০৫.০০.০০০০.১৪০.১৯.০০৯.১৭.৩২১) সূত্রে এই তথ্য জানা গেছে।

হাজীগঞ্জ পৌরসভায় যোগ দিচ্ছেন, চট্টগ্রামের কাট্টলী সার্কেলের সহকারী কমিশনার (ভূমি) মুহাম্মদ ইনামুল হাছান (১৮১৮৩)। তিনি ছাড়াও আরো তিন পৌরসভায় প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা (সিইও) হিসেবে যোগ দিবেন, কিশোরগঞ্জের ভৈরব পৌরসভায় মো. ইকবাল হাসান, কুমিল্লার লাকসাম পৌরসভায় নীলুফা ইয়াসমীন চৌধুরী ও যাশোরের বেনাপোল পৌরসভায় মো. মোজাম্মেল হক চৌধুরী।

জানা গেছে, সরকার প্রথম শ্রেণির সকল পৌরসভায় প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা (সিইও) হিসেবে প্রশাসন ক্যাডারের কর্মকর্তাদের পদায়ন করবে। ইতিমধ্যে দেশের ১০টি পৌরসভায় সিইও হিসেবে ১০জন সরকারি কর্মকর্তা কাজ করছেন এবং গত রোববার হাজীগঞ্জসহ আরো ৪ পৌরসভায় ৪ জন কর্মকর্তাকে পদায়ন করা হয়েছে। পর্যায়ক্রমে দেশের ৩২৮ পৌরসভার মধ্যে ১৯৪টি ‘ক’ শ্রেণির পৌরসভায় সরকারি কর্মকর্তাকে করবে।

এ ছাড়াও ঢাকার দুই সিটি করপোরেশনসহ দেশের ১২টি সিটি করপোরেশনেই আগে থেকেই প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা রয়েছেন। স্থানীয় সরকার (পৌরসভা) আইন, ২০০৯-এ বলা হয়েছে, সরকার নির্ধারিত শর্তে পৌরসভায় প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা নিয়োগ দেবে। পৌরসভার কর্মকর্তা-কর্মচারীরা তাঁর অধীনে থাকবেন।

আরো জানা গেছে, পৌরসভার প্রশাসন, স্বাস্থ্য ও প্রকৌশল তিনটি বিভাগের বিভাগীয় প্রধানেরা সিইওর অধীন থাকেন। প্রশাসন বিভাগের প্রধান সচিব, স্বাস্থ্য বিভাগে প্রধান স্বাস্থ্য কর্মকর্তা এবং প্রকৌশল বিভাগে প্রধান প্রকৌশলী। সিইও না থাকলে তাঁরা নিজ নিজ বিভাগের নথি পাঠান মেয়রের কাছে। পৌরসভায় সিইও থাকলে তিন বিভাগের নথি তাঁর কাছে যাবে। তিনি এসব নথি মেয়রের কাছে উপস্থাপন করবেন।

একই রকম খবর